ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কে প্রতিমাসে চাঁদাবাজি প্রায় ৩৪ লক্ষ টাকা চাঁদাবাজরা ধরাছোয়ার বাইরে !

0
765

ষ্টাফ রিপোর্টার- ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়করে মোগরাপাড়া থেকে চিটাগাংরোড র্পযন্ত থেমে নেই চাঁদাবাজি । প্রতটিি লেগুনা থেকে প্রতদিনি ৬০০টাকা চাঁদা নেয় চাঁদাবাজরা।তাছাড়া প্রতটিি গাড়ীর মান্তি দিতে হয় ২০০০ টাকা এবং লাইনম্যান সহ আনুসঙ্গকি চাদা দিতে হয় আরও ১০০টাকা।এই রুটে লগেুনা চলাচল করে ১৫০/১৮০টরি মতো।সইে হসিবেে মাসকি চাদার পরমিান হয় ৩৪৫০০০০ চৌত্রশি লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা।চাঁদাবাজদরে চাদা না দতিে চাইলে অনকে সময় অসহায় ড্রাইভার ও হলেপারকে মারদর করে চাঁদাবাজরা।চাঁদাবাজরা ধাম্ভকিতার সাথে জোর দয়িে বলে এই রাস্তায় চাদা না দয়িে কউে লগেুনা চালাতে পারবে না।চাঁদাবাজরা দাবী কের টাকার ভাগ উপর মহলেকেও দিতে হয় ।উপর মহল বলতে কাদের বুঝানো হয় ভুক্তেভাগীেদর তা বোধগম্য নয় ।সম্প্রতি চাঁদাবাজদরে চাদার টাকা পরে দতিে চাওয়ায় মদনপুর ষ্ট্যান্ড এলাকায় এক লগেুনা চালককে মারদর করে মারত্বক ভাবে আহত করে এক লাইনম্যান।এ ঘটনার তীব্র প্রতবিাদ করে সকল লগেুনা চালক ও শ্রমকিরা।লগেুনা চালকরা আরও বলনে,আমরা সাড়াদনি গাড়ি চালয়িে সন্ধা র্পযন্ত সময় লাগে জমা এবং চাদার টাকা উঠাইত,েসন্ধার পর থকেে রাত ৯টা র্পযন্ত গাড়ি চালানোর পর ড্রাইভার এবং হল্পোররে ২০০কংিবা ৩০০টাকা থাকে।এসময় তারা কান্নাজড়তি কন্ঠে বলনে,স্থানীয় জনপ্রতনিধিি ও পুলশি প্রশাসনরে নকিট আমাদরে আকুল আবদেন হয় এই সকল চাঁদাবাজদরে চাঁদাবাজি বন্ধ করনে না হয় আমাদরে গলাটপিে হত্যা করনে,কারন এই টাকায় আমাদরে সন্তানদরে নয়িে দুবলো ডাল ভাত খাওয়াবো না তাদরে লখোপড়া করাবো? এমতাবস্থায় সাধারন জনগনরে একটাই জজ্ঞিাসা পুলশিরে চোখরে সামনে দিনে দুপুরে কভিাবে চাঁদাবাজরা চাঁদাবাজি করে,পুলশি সহ যথাযথ র্কতৃপক্ষরে নিকট এই প্রশ্ন সাধারন মানুষের ।