মহাসড়ক দখল করে (BSRM)কোম্পানির বিরুদ্ধে অবৈধ গাড়ী পার্কিংয়ের অভিযোগ।

0
1027

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ -ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের মদনপুর জাঙ্গাল এলাকায় বিএসআরএম গ্রুপের লোহার রডবাহী ট্রাক ও লড়ি দিয়ে মহাসড়ক দখল করে পণ্য উঠানামা এবং অবৈধ পার্কিংয়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে।সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,বিএসআরএম কোম্পানির প্রস্তুতকৃত রডবাহী ট্রাক ও লড়ী গুলো মহাসড়কের অর্ধেক অংশ ব্যবহার করে তাদের পণ্য উঠানামার কাজ করছে।এতে করে তৈরী হচ্ছে দীর্ঘ যানজটের।এমনকি তাতে বাধা দিতে গেলে কোম্পানির লোকজন বিভিন্ন মামলার ভয়ভীতি দেখায়।মহাসড়ক অবৈধভাবে দখল করে ব্যবহার করার বিষয়ে কোম্পানির ইনচার্জ শাহ আলীর নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন”আমাদের কোম্পানির মালবাহী গাড়ী গুলো মহাসড়কে রাখার ব্যাপারে হাইওয়ে পুলিশের সাথে থার্ডপার্টি কন্ট্রাক্টর ম্যানেজ করে তারা ব্যবহার করছে, আমাদের কোম্পানির নিজস্ব পার্কিং ব্যবস্থা না থাকায় আমরা মহাসড়কের একটি অংশ ব্যবহার করছি তবে কোম্পানির নিজস্ব জায়গায় পার্কিংয়ের কাজ চলছে।এ ব্যাপারে কাচঁপুর হাইওয়ে থানার ওসি শেখ শরিফুল বলেন”ঊর্ধতন কর্মকর্তাদের নির্দেশনা মোতাবেক চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী মালবাহী ট্রাক ও লড়ীগুলো রাতের ৯টার পর ঢাকায় প্রবেশ না করতে পারায় মহসড়কের অতিরিক্ত অংশ অর্থাৎ সাদা দাগের বাহিরে তাদের যাত্রা বিরতির জন্য গাড়ী রাখতে পারবে,এছাড়া কোন কোম্পানির নিজস্ব গাড়ী মহাসড়কের অর্ধেক অংশ ব্যবহার করতে পারবেনা।বিভিন্ন সময়ে এই গাড়ী পার্কিংয়ের বিষয়ে বিএসআরএম কোম্পানিকে হুশিয়ার করেছি,প্রয়োজনে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেবো।তিনি আরও বলেন অবৈধভাবে গাড়ীর পার্কিংয়ের কোন অনুমতি হাইওয়ে পুলিশ বিএসআরএম কোম্পানিকে দেয়নি।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জৈনক এলাকাবাসী সাংবাদিকদের বলেন”এই কোম্পানি অবৈধভাবে মহাসড়কে গাড়ীর পার্কিংয়ের পাশাপাশি তাদের নিজস্ব মাইক দিয়ে দিনরাত ২৪ঘন্টা গাড়ীর সিরিয়ালের জন্য ডাকাডাকি করে,ফলে তাদের মাইকের আওয়াজে এই এলাকার ছাত্রছাত্রীরা ঠিকমতো লেখা পড়া করতে পারেনা,ঘুমাতে গেলেও মাইকের আওয়াজে ঘুমাতে পারিনা।তাদের বাধা দিতে গেলে স্থানীয় কিছু নেতা কর্মীদের সাথে নিয়ে মামলা মকদ্দমার ভয় দেখায়।এমতাবস্থায় ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের দীর্ঘ যানজট নিরশন ও বিএসআরএম কোম্পানির নিজস্ব মাইকের শব্দ দূষন থেকে এলাকাবাসীকে রক্ষায় যথাযথ কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছে স্থানীয় জনসাধারণ।