সোনারগাঁয়ে আল- মোস্তফা গ্রুপের তান্ডব

0
1699

সোনারগাঁয়ে আল- মোস্তফা গ্রুপের তান্ডব
যুবতীদের গোসল খানায় সিসি ক্যামেরা
মাজহারুল ইসলামঃ সোনারগাঁ উপজেলা পিরোজপুর ইউনিয়নে ইসলামপুর এলাকায় ভুমিহীনদের উচ্ছেদের সকল চেষ্টা ব্যর্থ হওয়ার পর এবার নারীদের গোলসখানা ও টয়লেটসহ স্পর্প্সকাতর এলাকাগুলোতে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করেছে আল মোস্তফা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আল মোস্তফার ভাই জাফর ইকবাল। এমন অভিযোগ করেছেন ইসলামপুরের ভুমিহীন শতাধিক নারী। ভূমিহীনরা নিজেরা ভূমি না ছাড়লে ভুমিহীন নারীদের সিসি ক্যামেরায় ধারন করা অশ্লিল ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দিবেন বলেও হুমকি দিয়েছেন জাফর ইকবাল। এতে ওই এলাকার নারী-পুরুষরা আতঙ্কিত হয়ে পরেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকেও ছবি পোষ্ট করে এর প্রতিকার চেয়েছেন ভুক্তভোগী মেয়েরা।
জানাগেছে, উপজেলা পিরোজপুর ইউপির ইসলামপুর এলাকার আল মোস্তফা গ্রুপ এলাকার সরকারি খাল, পুকুর ও খাঁস জমিসহ প্রায় ৬০ বিঘা জমি দখল করে তার কয়েকটি প্রতিষ্ঠান নির্মান করেছে। এসব খাঁস জমি উচ্ছেদে জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসন একাধিকবার নোটিশ দিলেও দখল ছাড়ছে না তারা। সম্প্রতি তারা ইসলামপুর এলাকার বাকি শতাধিক পরিবারকে উচ্ছেদ করার পায়তারা করছে। সে জন্য তারা ভুমিহীনদেরকে পালিত সন্ত্রাসী দিয়ে বসত ঘরে আগুন সহ ভয়ভীতি দেখিয়ে এখান থেকে উচ্ছেদের চেষ্টা করছে। তারা স্থানীয় নেতা ও প্রশাসনকে বিভিন্নভাবে ম্যানেজ করারও চেষ্টা করছে। এদিকে, ভুমিহীনদের খাঁস জমি দখলে নিতে ভূমিহীনদের ঘর-বাড়িকে পতিত জমি দেখিয়ে লিজ নেওয়ার জন্য জেলা প্রশাসনের কাছে একটি লিখিত আবেদন করেছেন। এদিকে, আল মোস্তফার ভাই জাফর ইকবাল ভুমিহীনদের শেষ সম্ভলটুকো কেড়ে নিতে নারীদের ইজ্জত নিয়েও খেলতে দ্বিধাবোধ করছে না। এমনকি সে তার এলাকায় কৈনতাপৈত ইউনিয়নে ভোট ডাকাতির মাধ্যমে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। ওই এলাকার চেয়ারম্যানের ক্ষমতা এখানে দেখাতে চাচ্ছেন বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীদের। ভূক্তভোগী নারীরা জানান, আমাদের উচ্ছেদে সব চেষ্টা ব্যর্থ হয়ে মোস্তফা গ্রুপের ব্যবস্থপনা পরিচালক জাফর ইকবাল আমাদের গোসলখানা ও টয়লেটগুলোর উপরে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করেছে। আমরা তার প্রতিবাদ করাতে সে আমাদের ধারনকৃত ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছে। এ ব্যাপারে আমরা প্রশাসনকে জানিয়েছি।
তারা আরো অভিযোগ করেন, জাফর ইকবাল এলাকায় নিজের আধিপত্য বিস্তার করতে বিয়ে করেন ভূমিদস্যু মৃত ওসমান মিয়ার মেয়েকে। এছাড়া নিজের নামের আগে ব্যবহার করেন মেঘনা গ্রুপের এম মোস্তফা কামালের নাম। মোস্তফা কামাল ভালো মানুষ কিন্তু নিজেদের স্বার্থের জন্য জাফর ইকবাল ওনার নাম ব্যবহার করে এলাকার সাধারণ জনগন ও প্রশাসনের চোখে ধুলো দেওয়ার চেষ্টা করছে।