বন্দরে বই ও টিসি বিক্রয়কারী অর্থলোভী শিক্ষক আতাউর এর বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর ক্ষোভ

0
2804

বন্দর প্রতিনিধিঃ-শিক্ষকের মত সম্মানীত পেশাকে কলঙ্কিত করেছে বন্দর উপজেলাধীন লাউসার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমান।বর্তমান সরকার দেশের প্রাথমিক শিক্ষাকে জনগণের দ্বাড়প্রান্তে পৌছে দেয়ার জন্য নানামুখী কর্মসূচি হাতে নিয়েছেন।স্বপ্নের সোনারবাংলা গড়তে শিক্ষার কোনো বিকল্প নাই।কিন্তু বর্তমান সরকার তথা দেশের আপামর জনতার স্বপ্নকে ধূলিসাৎ করছে আতাউর রহমানের মতো কিছু অসাধু অর্থলোভী শিক্ষক। ঘটনার বিবরণে জানা যায়,সরকারী বই বিতরণের সময় লাউসার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আতাউর রহমান ছাত্র/ছাত্রীদের নিকট থেকে জনপ্রতি ৩০/৪০টাকা করে আদায় করেন,এব্যাপারে স্কুলের বর্তমান নির্বাচিত সভাপতি জনাব মনা মেম্বারের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন”ছাত্র/ছাত্রীদের নিকট থেকে বই বিতরণের সময় টাকা আদায়ের বিষয়ে প্রধান শিক্ষক আমাকে বা কমিটিকে কিছুই জানায়নি,তাছাড়া এই প্রধান শিক্ষক আমাদের না জানিয়ে টিসি বিক্রয় করে অনেক টাকা হাতিয়ে নেয়ায় উপজেলা শিক্ষা অফিসারের উপস্থিতিতে আত্মসাৎকৃত টাকা ফেরতের ব্যবস্থা করি,এখন জেলা শিক্ষা অফিসারসহ প্রশাসনিকভাবে এই সমস্যার একটি সুষ্ঠু সমাধান আশা করছি।এদিকে অর্থলোভী শিক্ষক আতাউর নিজেকে ইউএনও মৌসুমী হাবীবের ভাইজান বলে পরিচয় দিয়ে এবং স্থানীয় একজন কথিত সাংবাদিকের পরিচয়ে বীরদর্পে শিক্ষক পদে বহাল থেকে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।স্থানীয় মদনপুর ইউনিয়ণ পরিষদ আওয়ামীলীগের সভাপতি জনাব শুক্কুর আলী বলেন”এমন দূর্নীতিবাজ শিক্ষকের অপরাধের কারণে এই বিদ্যালয়টির আজ এই বেহাল অবস্থা,আমরা এলাকাবাসী হিসেবে এই অপরাধী শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করছি। এবিষয়ে বন্দর থানার নির্বাহী অফিসার মৌসুমী হাবীব বলেন”এই অর্থলোভী শিক্ষকের বিষয়ে জেলা শিক্ষা অফিসে রিপোর্ট প্রেরণ করা হয়েছে,তদন্ত রিপোর্টের উপর ভিত্তি করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।এছাড়াও এই অর্থলোভী শিক্ষকের শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়েও অভিযোগ রয়েছে।এলাকাবাসীর ভাষ্যমতে তিনি এসএসসি পাস করে টাকার বিনিময়ে নকল সার্টিফিকেট তৈরী করে প্রধান শিক্ষক পদে চাকরী করছেন। সরকারী নিয়মনীতিকে তোয়াক্কা না করে সরকারী বই বিক্রি সহ  নানা অভিযোগে অভিযুক্ত হয়েও শিক্ষক পদে বহাল থাকা নিয়ে তিব্র  ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে সহকারী শিক্ষক, ম্যানেজিং কমটিসহ ও সচেতন এলাকাবাসীর মধ্যে । অভিযুক্ত শিক্ষকের শাস্তি নিশ্চিত করার দাবী এলাকাবাসীর ।