সোনারগাঁও জাদুঘরে লোকজ উৎসবে নাটকের নাম করে সামসুলের চাঁদাবাজি

0
3229

 

মোঃ মোক্তার হোসেনঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলায় বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন জাদুঘরে আগামী ১২ ফেব্রুয়ারীতে নাটক মঞ্চস্থ করা হবে বলে নাম করে চিহ্নিত শীর্ষ চাঁদাবাজ সামসুল আলমের (৪৫) নেতৃত্বে¡ ৮/১০ জনের একদল সন্ত্রাসী বেপরোয়া ভাবে চাঁদাবাজি চালিয়ে যাচ্ছে। প্রতিদিন ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মোগরাপাড়া চৌরাস্তা বাস স্ট্যা-, মেঘনা শিল্পাঞ্চল ও কাঁচপুর শিল্পাঞ্চল ইউনিক গ্রুপের রিজোর্ট আবাসন প্রকল্পের এলাকা থেকে লাখ লাখ টাকা চাঁদা উত্তোলন করছে বলে অভিযোগ ওঠেছে। শীর্ষ চাঁদাবাজ সামসুল আলম মোগরাপাড়া ইউনিয়নের গোহাট্রা গ্রামের মৃত টুন্ডা খইল্লার ছেলে। গত ২০১৬ সালের ৬ অক্টোবর বিকেল চাঁদা দাবি করে ইউনিক গ্রুপের কর্ণধার নুর আলীর রিজোর্ট আবাসন নামের প্রকল্পে বালু ভরাট কাজে বাঁধা দেয়। এ সময় তার সহযোগী আমতলা দালাল বাড়ীর মৃত তোফাজ্জলের ছেলে ধোপা মোক্তার (৪৬) ও পার্শবর্তী বন্দর উপজেলার নবীগঞ্জ গ্রামের মৃত সিরাজউদ্দিনের ছেলে জহিরসহ (৩৮) ৪ জনকে পুলিশ হাতে আটক হয়। পরে পুলিশ ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে চাঁদাবাজ সামসুল আলমসহ ৪ জনের ১ মাসের করে সাজা প্রদান করে জেলহাজতে পাঠিয়েছিল। জেল থেকে ছাড়া পেয়ে চাঁদাবাজ সামসুল আলম ও তার সহযোগীরা এখন বেপরোয়া ভাবে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় চাঁদাবাজি করছে। আগামী ১২ ফেব্রুয়ারী সোনারগাঁও জাদুঘর চত্বরে নাটকের নামে পুরো এলাকা জুড়ে ব্যানার, ফেস্টুন সাটিয়ে মহা উৎসব চাঁদাবজি চালিয়ে যাচ্ছে। এলাকাবাসী চাঁদাবাজ সামসুল আলম ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে দ্রুত প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছে। এব্যাপারে সোনারগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহ্ মোঃ মঞ্জুর কাদের পিপিএমের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমরা অভিযোগ পাইনি, অভিযোগ পেলে আমরা আইনগত ব্যাবস্থা নিব। বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের পরিচালক রবীন্দ্র গোপের সাথে মোবাইলফোনে কথা হলে তিনি জানান, এখনও ১২ ফেব্রুয়রীতে কোন নাটক মঞ্চস্থ হবে এধরনের কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি।