সোনারগাঁয়ে কথিত সোর্স জয়নাল মীরের দৌরাত্বে অতিষ্ট এলাকাবাসী

0
1462

Untitled-02
আজকের সোনারগাঁওঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় পুলিশের কথিত সোর্সদের দৌরাত্বে অতিষ্ট সাধারণ লোকজন । অপরাধীদের ধরতে পুলিশ অনেক সময় সোর্সদের সহযোগিতা গ্রহন করে । সেই সুবাধে পুলিশের সাথে সোর্সদের একটা সখ্যতা গড়ে উঠে । পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে সোর্সরা সাধারণ মানুষদের মাঝে আতংক সৃষ্টি করে ভয় দেখিয়ে মিথ্যা মামলায় জরিয়ে নিজেদের স্বার্থ হাসিল করে। থানা পুলিশ এবং পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তাদের নাম ভাঙ্গিয়ে এলাকার লোকদের কাছ থেকে ভিবিন্ন ভাবে টাকা আদায় এবং সংখ্যালগু হিন্দু পরিবারের লোকজনকে ভয় দেখিয়ে ভিটে মাটি ছাড়া করার অভিযোগ উঠেছে নোয়াপুর এলাকার জয়নাল মীরের বিরুদ্ধে । এ ব্যাপারে পুলিশ সুপার নারায়ণগঞ্জ বরাবরে একাধীক আবেদন করা হয়েছে । খোজ নিয়ে জানা গেছে কল্পনা রানী মিত্র, ইয়াহিয়া,রুহুল আমিন কথিত পুলিশ সোর্স জয়নাল মীরের দৌরাত্ব থেকে রক্ষার জন্য আবেদন করেও কোন ফল পাচ্ছেনা । মামলা থেকে নাম বাদ দেওয়ার কথা বলে ৭ লাখ টাকা নিয়ে আত্মসাত করেছে বলে অভিযোগ করেছে বরারব এলাকার ইয়াহিয়া । সেই টাকা চাইতে গেলে উল্টো বিভিন্ন মামলায় ফাসানোর হুমকী দেয় । একই ঘটনায় নোয়াপুর বরাব এলাকার রুহুল আমিনকেও গালিগালাজ করে হুমকি দেয় বিভিন্ন অবৈধ জিনিস পত্র দিয়ে পুলিশের হাতে ধরিয়ে বিভিন্ন মামলায় ফাসানোর কথা বলে । এ বছরের ২৪ জানুয়ারী পুলিশ সুপারের বরাবর অভিযোগ করার পরের মাসেই তাকে ফাসানো হয় মামলায় । একই এলাকার কল্পনা রানী মিত্রের পুরোপরিবারকে ভয়ভিতি দেখিয়ে বাড়ি থেকে তারিয়ে দখল করে নিয়েছে তার বাড়ি ঘর । তার ভয়ে এলাকায় আসতে না পেরে পুলিশ সুপারের সাহায্য চেয়েও ফিরে পায়নি ভিটেমাটি। একজন পুলিশের সোর্স এলাকায় এভাবে ভয়ভিতি নির্জাতন চালিয়ে রামরাজত্ব কায়েম করে জনমনে আতংক সৃষ্টি করে বহাল তবিয়তে দিন কাটাচ্ছে । ভুক্তভোগীরা এবং সাধারণ মানুষ এর থেকে পরিত্রান চায় । এব্যাপারে জয়নাল মীর বলেন আমি কল্পনা রানী মিত্র নামে কাউকে চিনিনা । ইয়াহিয়া এবং রুহুল আমিন আমাকে হয়রানী করার জন্য আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করেছে ।