আড়াইহাজারে বিএনপিতে বিভাজনের রাজনীনিতে ঐক্যের সুর

0
860

Untitled-02

আড়াইহাজার থানা বিএনপি দীর্ঘদিন ধরে একাধিকভাগে বিভক্ত হয়ে পরিচালিত হয়ে আসছে। এই উপজেলায় বর্তমানে দলের নেতৃত্বে দিচ্ছেন বিএনপির নির্বাহী কমিটির ধর্মবিষয়ক সম্পাদক এএম বদরুজ্জামান খসরু, সাবেক এমপি আতাউর রহমান আঙ্গুর, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ ও যুবদলের কেন্দ্রী নির্বাহী কমিটির প্রয়াত সদস্য এমএফএম ইকবালের পক্ষে থানা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর ও বিএনপির থেকে মনোয়ন প্রত্যাশী নেতা নুরুল ইসলাম (নুরু) ও বিএনপির নেতা আনোয়ার হোসেন (অনু)।

জানা গেছে, এরই মধ্যে খসরুগ্রুপ ব্যাতিত অন্য সবক’টি গ্রুপের নেতাকর্মীরা ঐক্যমতে পৌঁছানোর লক্ষ্যে উপজেলা সদরে আশিক সুপার মার্কেটে দলীয় কার্যালয়ে কয়েক দফায় পরম্পরের মধ্যে সংলাপ করেছেন। সম্মনয়ক হিসাবে কাজ করছেন সাবেক বিআরডি’র চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন (অনু)। সংলাপে এ পর্যন্ত বিএনপিপন্থী গোপালদী পৌরসভার কাউন্সিলর শাহজাহান, ফজলুল হক ও তাছলিমা অংশ নেয়। বিএনপিতে দীর্ঘদিন পরে হলেও বিভাজনের রাজনীতিতে ঐক্যের সুর শোনা যাচ্ছে বলে দলটির তৃণমুলের নেতাদের মধ্যে কেউ কেউ দাবী করছেন।

নজরুল ইসলাম আজাদ গ্রুপ ও থানা বিএনপির সভাপতি প্রার্থী হাবিবুর রহমান (হাবু) সাংবাদিকদের বলেন, নিজের স্বার্স্থের জন্য বিএনপির রাজনীতি করছি না। দলের স্বার্স্থে যে কোনো ত্যাগী শিকারে প্রস্তুত রয়েছি। তিনি আরো বলেন, বিভাজনের রাজনীতি থেকে দলকে বের করে আনার জন্য এরই মধ্যে বিএনপির নেতা আনোয়ার হোসেন (অনু)’র ডাকে আমরা সাড়া দিয়েছি। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আমাদের মধ্যে ফলোপ্রসু আলোচনা হয়েছে। আশা করি আমরা সফল হব। এইনেতার দাবী, অনু প্রকৃত পক্ষেই সাংগঠনিক ও সাহসী একজন নেতা। ইতিমধ্যে তার বিভিন্ন কর্মকান্ডেও প্রমাণ পাওয়া গেছে।

নুরুপ্রুগের ছাত্র সংসদের সাবেক (ভিপি) এম এ মতিন ভূঁইয়া বলেন, দীর্ঘদিন ধরে আড়াইহাজারে বিএনপির দুইনেতার ইচ্ছা মাফিক পরিচালিত হয়ে আসছিল। অতীতে বিএনপি পরিচালনার ক্ষেত্রে পকেট কমিটির কারণে ত্যাগী অনেক নেতাকর্মীই পদ থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। গ্রুপিং রাজনীতির কারণে নানাভাবে নির্যাতনের শিকার হাজার হাজার নেতাকর্মী সহযোগিতা থেকে পুরোপুরি বঞ্চিত হয়েছেন। এতে দলটি ধংসের দ্বারপ্রান্তে চলে গেছে। বর্তমানে এক প্রকার লাইফ সার্পোটে রয়েছে দলটি। বিভাজনের রাজনীতি দলের সহায়ক শক্তি না হলেও; নেতাকর্মীদের মধ্যে কাঁধাছুড়াছুড়ি দলের ভবিষ্যত নিয়ে শঙ্কায় অনেকে রয়েছেন। আনোয়ার হোসেন (অনু)’র ডাকে উপজেলার সবস্তরের নেতাকর্মীরা সাড়া দিয়েছেন। দলের স্বার্থে আমরা ঐক্যমতে পৌঁছানোর চেষ্টা করছি।

জাহাঙ্গীর গ্রুপের অনুসারী জেলা যুবদলের নিসিয়র সহ-সভাপতি ছালাউদ্দিন মোল্লা বলেন, অতীতে কে, কি করেছেন। আমি তাদের ব্যাপারে কিছু বলতে চাই না। তবে আড়াইহাজারে বিএনপির রাজনৈতিক অবস্থা খুবই নাজুক। এই মুহূর্তে দলের মধ্যে ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই। এরই মধ্যে (অনু)’র ডাকে আমরা সাড়া দিয়েছি। এনিয়ে আমরা খোলামেলা আলোচনা চলছে। আশা করি দলের বৃহত্তম স্বার্স্থে আমরা ক্ষুদ্র স্বার্স্থ ত্যাগ করে অচিরেই ঐক্যমতে পৌঁছাতে পারব।

আতাউর রহমান আঙ্গুর গ্রুপের নেতা মনির হোসেন বলেন, বিগত দিনের আন্দোলন সংগ্রামে অনেকেই মাঠে ছিল না। তাদের অনুপস্থিতিতে নেতাকর্মীরা হতাশ হয়েছেন। তিনি অভিযোগ করেন, র্দীঘদিন ধরে নেতা শূন্যতায় নেতাকর্মীরা দিশেহারা হয়ে ছুঁটে বেড়াচ্ছেন। বিএনপির এই প্রবীন নেতার দাবী, বিএনপিকে ঘুরে দাঁড়াতে হলে এই মুহূর্তে আনোয়ার হোসেন (অনু)’র মতো একজন সাহীস ও সাংগঠনিক নেতার কোনো বিকল্প নেই। এই মুহূর্তে তার ডাকে সাড়া দিয়ে উপজেলা বিএনপির সর্বস্তরের নেতাকর্মীনা ঘোর অন্ধকারে আশার আলো দেখতে পারছেন । তার হাতে দায়িত্ব দেয়া হলে তিনি দলকে দ্রুত গুছাতে পারবেন।

এদিকে, থানা বিএনপির সভাপতি প্রার্থী আনোয়ার হোসেন (অনু) বলেন, ব্যাক্তিগত উন্নয়ন নয়; দলের উন্নয়নের মিশন হাতে নিয়ে আমি সবাইকে ডাক দিয়েছি। আমার ডাকে এরই মধ্যে নিবেদিত প্রাণ ও ত্যাগী নেতারা সাড়া দিয়েছেন। সবার মতামতের ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেব। আলোচনা চলছে, খুব শিগগিরই এর সুফল পাওয়া যাবে। দলের স্বার্স্থে অতীতে কেউ এভাবে নেতাকর্মীদের নিয়ে বসেনি।