বেহাত হচ্ছে সরকারের ১০ কোটি টাকার জমি

0
1322

Untitled-02

আজকের সোনারগাঁও: নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে পৌরসভা বাজারে বেহাত হচ্ছে সরকারের ৫১ শতাংশ জমি। যার বাজার মূল্য প্রায় ১০ কোটি টাকা। জানা গেছে, “নয়নজুলি” নামে একটি খাল ভরাট করে তাতে মার্কেট নির্মাণ করা হয়েছে। তবে জমিটির খরিদ সূত্রে মালিকানা দাবী করছেন, স্থানীয় বেশ কয়েক ব্যাক্তি। তাদের দাবী স্বাধীনতার পরবর্তী সময় থেকে তারা জমি ভোগ দখলে রয়েছেন। ভুলবশত জমিটি খালের নামে আর,এস রেকর্ড লিপিবদ্ধ হয়েছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, সংশ্ল্ষ্টি কর্তৃপক্ষকে বিভিন্ন কায়দায় ম্যানেজ করে এবং রাজনৈতিক প্রভাব খাঁটিয়ে সকারের মূল্যবান এজমি স্থানীয় একটি শক্তিশালীচক্র দখলে রেখেছেন। জমি রক্ষার জন্য সরকারের পালা বদলের সঙ্গে সঙ্গে দখলদারদের মধ্যে কেউ কেউ দল বদল করছেন। বেশ কয়েকবার উদ্যোগ নেওয়া হলেও; রহস্যজনক কারণে জমিটি উদ্ধার করা হয়নি। পরবর্তীতে সরকারকে বিবাদী করে এনিয়ে নারায়ণগঞ্জের আদালতে রেকর্ড সংশোধনী একটি মামলা করা হয়েছে।

আড়াইহাজার পৌরসভা তহশিল অফিস সূত্রে জানা গেছে, আড়াইহাজার মৌজায় এস,এ ৩৮০, ৩৮১, ৩৮৪ ও ৩৮৬ দাগ থেকে বিভক্ত হয়ে আর,এস ৬৪৯ দাগে “নয়নজুলি” নামে খালের অধিনে ৫১শতাংশ জমি (ভিপি) তালিকায় অথাৎ ‘ক’ খতিয়ানে লিপিবদ্ধ হয়েছে।

সরেজমিন গিয়ে জানা যায়, আড়াইহাজার মৌজায় এস,এ ৩৮০, ৩৮১, ৩৮৪ ও ৩৮৬ দাগ বিভক্ত হয়ে আর,এস ৬৪৯ দাগে ৫১ শতাংশ জমি “নয়নজুলি” নামে একটি খালে লিপিবদ্ধ হয়েছে। এতে মার্কেট নির্মাণ করা হয়েছে। সরকারের প্রায় ১০ কোটি টাকার জমি বেহাত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

পৌরসভার বাসিন্দা শ্রী অতিন্দ্র চন্দ্র পাল বলেন, স্বাধীনতার পরে খালটি ভরাট করে মার্কেট নির্মাণ করা হয়েছে। খাল দিয়ে বাজারে নৌকা যোগে মালামাল আনা-নেয়া করা হতো। এটি ভরাট করায় সামান্য বৃষ্টি হলে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। খালটি উদ্ধার করে পুনরায় খনন করে পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা করা হলে সবাই পৌরবাসী উপকৃত হতো।

এদিকে, সুবেদ আলী মার্কেটের মালিক পক্ষের সেলিম বলেন, এস,এ রেকর্ডে মালিকানাধীন জনৈক শুকুর আলী ও হযরত আলীর কাছ থেকে ১৯৬৬ সালে খরিদ সূত্রে সম্পত্তির মালিক হয়ে তিনি ভোগ দখলে রয়েছেন। কিন্তু জমিটির কিছু অংশ বিভক্ত হয়ে আর,এস ৬৪৯ দাগে ৫১ শতাংশ “নয়নজুলি” খালের নামে ভুলবশত লিপিবদ্ধ হয়েছে। তিনি আরো বলেন, সরকারকে বিবাদী করে এনিয়ে নারায়ণগঞ্জ আদালতে রেকর্ড সংশোধনী একটি মামলা করা হয়েছে। মামলাটি বর্তমানে চলমান।

স্থানীয় আওয়ামী লীগের একনেতা পরিচয় গোপন রাখার শর্তে বলেছেন, পৌরসভা বাজারে সরকারের প্রায় ১০ কোটি টাকা মূল্যমানের জমিটি দীর্ঘদিন ধরেই বেদখলে রয়েছে। জমি রক্ষার জন্য সরকার পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে দখলদারদের মধ্যে কেউ কেউ খোলস পাল্টাচ্ছেন করছেন। এমনকি তারা সংশ্লিষ্ট কর্তাব্যাক্তিদের বিশেষ সুবিধা দিয়ে ম্যানেজ করেই এটি ভোগ দখলে ররেছেন। এতে জমিটি উদ্ধারে বাঁধা সৃষ্টি হচ্ছে।

আড়াইহাজার পৌরসভার তহশিলদার মুহাম্মদ হাবিবুর রহমান বলেন, জমিটি আর,এস ৬৪৯ দাগে (ভিপি) তালিকায় ‘ক’ খতিয়ানে লিপিবদ্ধ হয়েছে। এনিয়ে আদালতে রেকর্ড সংক্রান্ত একটি দেওয়ানী মামলা চলমান রয়েছে। তিনি আরো বলেন, মামলাটি আমাদের অনুকূলে নিম্পত্তি হলেই কেবল উদ্ধার করা সম্ভব হবে।

আড়াইহাজার উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) এএফএম ফিরোজ মাহ্মুদ বলেন, মামলা জটিলতায় খালের জমি উদ্ধার করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে মামলাটি পরিচালনার ক্ষেত্রে আমাদের পক্ষ থেকে কোনো প্রকার গাফলতি নেই। প্রতিটি ধার্য তারিখেই হাজিরা দেয়া হচ্ছে।