সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামীলীগকে পাশ কাটিয়ে যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ছিলনা আযানের বিরতি

0
1925

Untitled-02 - Copy

আজকের সোনারগাঁওঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলায়  শুক্রবার বিকেলে মোগরাপাড়া এইচ,জি,জি,এস স্মৃতি বিদ্যায়তন মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগকে পাশ কাটিয়ে যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে যুবলীগের পক্ষ থেকে উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট সামসুল ইসলাম ভূইঁয়া ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালামসহ কমিটির কাউকেই অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ করা হয়নি। তবে সম্মেলনে উপজেলা আওয়ামী লীগের কাউকে আমন্ত্রণ না জানানোর কারনে আওয়ামী লীগের নেতাদের বিভক্তি আবারও দলের নেতাদের দুরত্বের সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।
যুবলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আব্দুল হাই। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সাবেক এমপি আবদুল্লাহ আল কায়সার, কেন্দ্রিয় যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সালাউদ্দিন মাহমুদ জাহিদ, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মো. মোশারফ হোসেন। উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা যুবলীগের সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল কাদের, প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,আবু হাসনাত শহিদ মো. বাদল।
২০১৫ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর কেন্দ্রীয় কমিটি রফিকুল ইসলাম নান্নুকে আহ্বায়ক ও মোহাম্মদ আলী হায়দারকে যুগ্ম-আহ্বায়ক করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট একটি আহ্বায়ক কমিটি’র অনুমোদন দেয়। ৯০ কার্যদিবসের মধ্যে উপজেলা যুবলীগের পুর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করে কেন্দ্রে জমা দেয়ারও নিদের্শ দেয়া হয়েছিল । সোনারগাঁও উপজেলা যুবলীগের পদবঞ্চিত নেতা কর্মীদের মতে বানিজ্যিক কারণে দরকষাকষীতে ৬৫৪ দিন সময় পার হয় ।  অবশেষে ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের মাধ্যমে শুক্রবার সন্ধ্যার পর উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার কমিটির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের নামসহ কমিটি আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষনা করে উপজেলা আহবায়ক কমিটি।সম্মেলনের প্রথম পর্ব শেষে দশটি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার কাউন্সিলরদের গোপন ভোটের মাধ্যমে রফিকুল ইসলাম নান্নু সভাপতি ও আলী হায়দারকে সাধারণ সম্পাদক এবং কামাল হোসেনকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট উপজেলা যুবলীগের কমিটি ঘোষনা করা হয়েছে।সম্মেলন চলাকালে আযানের বিরতি না থাকাতে  সমালোচনা করেছেন অনেকে ।