লগি বৈঠা টেটা নিয়ে গ্রামবাসীর প্রতিরোধ

0
3454

Untitled-02 - Copy

মোঃ শাহ জালাল মিয়া- সোনারগাঁয়ে গ্রামবাসীর প্রতিরোধের মুখে পালিয়ে গেছে বালু সন্ত্রাসীরা। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার মেঘনা নদীর চরাঞ্চল নুনেরটেক গ্রামের পাশ্ব থেকে অবৈধভাবে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলনের সময় এ ঘটনা ঘটে। নুনেরটেক গ্রামবাসী একত্রিত হয়ে লাগি, বৈঠা,ভল্লম ও টেটা সোটা নিয়ে বালু সন্ত্রাসীদের ধাওয়া করলে বালু সন্ত্রাসীরা ঘটনাস্থল থেকে ড্রেজার নিয়ে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়। এলাকাবাসী জানায়,আমরা আমাদের একমাত্র ঠিকানা আমাদের গ্রামটিকে বাচাতে অনেক আন্দোলন কর্মসুচি এবং প্রশাসন সহ স্থানিয় নেতাদের দ্বারস্ত হয়েও বালু সন্ত্রাসীদের থামানো যাচ্ছে না। প্রশাসনের ব্যর্থতার কারনেই আমরা গ্রামবাসী এত্রিত হয়ে জীবন বাজি রেখে বালু সন্ত্রসীদের বিরুদ্ধে রুখে দাড়িয়েছি। বর্তমানে সোনারগাঁয়ের মেঘনা নদীতে বালু উত্তোলনের জন্য সরকারীভাবে কোন ইজারা দেয়া না হলেও স্থানীয় বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি নবী হোসেন ও তার সহযোগী আমির হোসেন, সিরাজ, মাজারুল জোড় করে দুটি ড্রেজার দিয়ে নুনেরটেক গ্রামের পাশ গেসে জেগে ওঠা চর থেকে বালু উত্তোলন করছে। মঙ্গলবার সকালে ড্রেজার দিয়ে আবারো বালু উত্তোলন শুরুকরে। এসময় গ্রামের নারী পুরুষ একত্রিত হয়ে বালু সন্ত্রাসীদের ধাওয়া করলে তারা পালিয়ে যায়।
এদিকে, গত ৩০ মার্চ বারদী ইউপি চেয়ারম্যান জহিরুল হকের বাড়িতে দাওয়াতে এসে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি একেএম শামীম ওসমান বালু খেকুদের উদ্দেশ্যে বলেন যারা আমার নাম ভাঙ্গিয়ে বালু বিক্রি করে  তাদেরকে প্রতিহত করুন।