সোনারগাঁয়ে শ্রমিক ছাটাইয়ের প্রতিবাদে বিক্ষোভ

0
653

Untitled-02 - Copy

আজকের সোনারগাঁওঃ  নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার পিরোজপুর এলাকায় অবস্থিত বিথী ফ্যাশন নামে একটি রপ্তানী মুখী পোশাক শিল্প কারখানার শ্রমিকরা   বুধবার দুপুরে শ্রমিক ছাটাইয়ের প্রতিবাদে কারখানায় মূল ফটকের সামনে বিক্ষোভ মিছিল করেছে।  এ ব্যপারে নির্বাহী কর্মকর্তা ও সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছন শ্রমিকরা ।
তারা জানায়,উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের পিরোজপুর এলাকায় অবস্থিত বিথী ফ্যাশন গার্মেন্টস এর প্রায় অর্ধশতাধিক শ্রমিককে ছাটাই করেন মালিক পক্ষ। গতকাল তারা কাজে যোগদানের জন্য কারখানায় এসে দেখেন তাদের চাকরী থেকে অব্যহতি প্রদান করা হয়েছে। এবিষয়ে মালিক পক্ষের উর্ধতন কর্মকতাদের সঙ্গে শ্রমিকরা যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তাদের কারখানায় প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি। পরে শ্রমিকরা একত্রিত হয়ে কারখানায় মূল ফটকের সামনে বিক্ষোভ মিছিল করে। পরে বিকেলে তারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছন।
ওই কারখানার কোয়ালিটি ইনচার্জ শহিদুজ্জামান বলেন, এই কারখানায় ২শ ৫০ জন শ্রমিক কাজ করেন। কিন্তু বিনা নোটিশে কোন কারন না দেখিয়ে ফিনিশিং, স্ইুং ও কোয়ালিটি সেকশনের অর্ধশতাধিক শ্রমিককে ছাটাই করেন মালিক পক্ষ। তিনি বলেন ওই কারখানার চেয়ারম্যান মাসুদুর রহমান , ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিল্লাল হোসেন ও পিএম হানিফ মিয়ার কথায় আমাদেরকে বিনা কারনে চাকরী থেকে বহিষ্কার করেছে। আমাদের বকেয়া বেতন চাইতে গেলে মালিক পক্ষ টালবাহানা শুরু করেন।
ফনিশিং সুপারভাইজার আল-আমিন বলেন, মালিক পক্ষের লোকেরা আমাদের বিনা কারনে অন্যায়ভাবে চাকরী থেকে ছাটাই করেছেন। আমরা প্রতিবাদ করতে গেলে আমাদেরকে মিথ্যা মামলা দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করবে বলে হুমকি দিচ্ছে।
কোয়ালিটি ইনেসপেক্টর নাসিমা আক্তার বলেন, গত ১০এপ্রিল এমডি স্যার বিল্লাল হোসেন তার কক্ষে আমাকে ডেকে পাঠান। সেখানে আমাকে তিনি কুপ্রস্তাব দেন। আমি তার প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় আমাকে চাকরী থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।
সুইং অপারেটর পিংকি আক্তার বলেন, জেনারেল ম্যানেজার (এডমিন) রাসেল মিয়া আমাকে বিনা কারনে মারধর করে চাকরী থেকে বের করে দেন।
সুইং অপারেটর শাহেলা বেগম বলেন, আমার অসুস্থতার কারনে একদিন কারখানায় কাজে যেতে না পারায় আমাকে চাকরী থেকে বের করে দেওয়া হয়েছে।
সুইং অপারেটর রাজেনা বেগম জানান, আমাদের অন্যায়ভাবে চাকরী থেকে বাদ দিয়ে মালিক পক্ষের সন্ত্রাসী বাহিনীদেরকে দিয়ে হুমকি ধমকি দিচ্ছে। এতে আমরা নিরাপত্তা হিনতায় ও অতংকে দিন কাটাচ্ছি।
এবিষয় জানতে চাইলে বিথী ফ্যাশনের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক বিল্লাল হোসেন বলেন, কতিপয় শ্রমিক কারখানার নিয়মনীতি ভঙ্গ করায় তাদেরকে চাকরী থেকে অব্যহতি প্রদান করা হয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী তাদের বেতন ও অন্যান্য পাওনাদি পরিশোধ করা হবে। গামের্ন্টস এর এক নারী শ্রকিকে কুপ্রস্তাবের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি এবিষয়টি অস্বিকার করে বলেন আমি ওই নারী শ্রমিককে চিনি না।
সোনারগাঁ থানার ওসি মঞ্জুর কাদের বলেন এবিষয়ে আমরা একটি অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।
সোনারগাঁ উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহিনুর ইসলাম বলেন, এবিষয় লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। মালিকপক্ষকে শ্রমিকদের বকেয়া বেতন দেওয়ার ব্যাপারে বলা হয়েছে।