গার্মেন্টস শ্রমিক শামীমের কষ্টের টাকায় কেনা জমি অবৈধ ভাবে দখলের চেষ্টা

0
3108

বন্দর প্রতিনিধিঃ-নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর উপজেলাধীন ২৬ নং ওয়ার্ড অন্তর্গত উত্তর লক্ষনখোলাস্থ ঢাকেশ্বরী মন্দির এলাকায় একজন অসহায় গার্মেন্টস শ্রমিক শামিমের ক্রয়কৃত জমি জোর পূর্বক দখল করে তার উপর সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে চিহ্নিত ভূমিদস্যু সিরাজ গং।দিন রাত পরিশ্রম করে খেয়ে না খেয়ে জমানো টাকা দিয়ে ২০০৭ সালে ধামগড় মৌজায় ৩৩ শতাংশ জমি ক্রয় করার পর থেকে আজঅবদী স্থানীয় ভূমিদস্যূ সিরাজ গংদের অত্যাচারে ও তাদের জোড়পূর্বক বেদখলের কারণে গার্মেন্টস শ্রমিক শামিম তার জমি দখলে যেতে পারছে না।২০০৭সাল থেকে এ পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে অসহায় শামীম এবং তার পরিবারের উপর সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছে সিরাজ গং।সর্বশেষ জমির মালিক শামীম সুবিচার পেতে বন্দর উপজেলা ভূমি অফিসারের নিকট একটি আবেদন করেন,কিন্তু এরই মধ্যে প্রশাসন কে অমান্য করে সিরাজ গং শামীমের মালিকানাধীন সাইনবোর্ডটি তার সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে রাতের আধারে ফেলে দেয় এবং বিভিন্ন লোক মারফত জমির মালিককে শামীমসহ তার পরিবারকে প্রাণে ফেলার হুমকি প্রদান করে যা সাড়া এলাকাজুড়ে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।সিরাজ গং বিষয়টি অস্বীকার করেন।এদিকে সাইনবোর্ড ফেলা দেয়া এবং প্রাননাসের হুমকির ঘটনায় জমির প্রকৃত মালিক ভূক্তভোগী শামীম বাদী হয়ে বন্দর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন।অভিযোগের সত্যতা প্রমানে বন্দর থানা পুলিশের এস আই মোঃ ইলিয়াস খান ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে ঘটনার সত্যতা পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন।অসহায় শামীমের জমিটি নিয়ে শামীম ও সিরাজ গংদের মধ্যে যে বিরোধ চলে আসছে সে সম্পর্কে স্থানীয় ইউনিয়ন ভূমি অফিসের ভূমি কর্মকর্তা সুজিত বাবু সংবাদ মাধ্যমকে বলেন”গার্মেন্টস শ্রমিক শামীমের জমিটি নিয়ে সিরাজ গংদের সাথে যে বিরোধ চলছে  তা আমার জানামতে কিছুদিনের মধ্যেই বন্দর উপজেলা ভূমি অফিসে উভয় পক্ষের কাগজপত্র দেখে সমাধান হবে।জমির মালিক শামীমের নামজারির আবেদনের প্রেক্ষিতে বন্দর উপজেলা ভূমি অফিসার নাহিদ সুলতানা বলেন”নামজারির আবেদন পেয়েছি,উভয় পক্ষের দলিল পত্র দেখে অচিরেই এই জমি সংক্রান্ত বিরোধের সমাধান করা হবে।সিরাজ গংদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড সম্পর্কে এলাকাবাসী বলেন”আমাদের জানা মতে এই জমিটি গার্মেন্টস শ্রমিক শামীমের অতি কষ্টের টাকায় ক্রয়কৃত জমি,জমিটি ক্রয়ের পর থেকেই ভূমিদস্যু সিরাজ গং অবৈধ ভাবে বেদখল করার পায়তারা করে যাচ্ছে।ভূমিদস্যু সিরাজের সন্ত্রাসী তান্ডবে এলাকাজুড়ে তীব্র ক্ষোভ ও ভীতির সৃষ্টি হয়েছে।এমতাবস্থায় গার্মেন্টস শ্রমিক শামিমের জমি ফেরত পেতে ও তার জীবনের নিরাপত্তায় জেলা পুলিশ সুপার ও নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক সহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পুলিশ প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা করছেন জমির প্রকৃত মালিক অসহায় শামীম ও তার পরিবার।