বিথী গার্মেন্টস শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশ ও মালিক পক্ষের সন্ত্রাসীদের দফায় দফায় সংঘর্ষ,ভাংচুর,আহত-১৫

0
537

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার পিরোজপুর এলাকায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে অবস্থিত বিথী ফ্যাশন নামে একটি তৈরী পোশাক কারখানার শ্রমিকরা দুই মাসের বকেয়া বেতন ও ঈদ বোনাস দাবিতে পুলিশ ও মালিক পক্ষের সন্ত্রাসীদের সঙ্গে দফায় দফায় সংঘর্ষ ঘটে। এতে শ্রমিক লুৎফর রহমান, সোহাগ মিয়া, খোকন হোসেন, আবু সাঈদ, মানসুরা আক্তার,তানিয়া আক্তার ও জোৎসনা বেগম সহ কমপক্ষে ১৫জন শ্রমিক আহত হয়েছে। আহতদের উদ্ধার করে সোনারগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও স্থানীয় ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। পরে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা একত্রিত হয়ে কারখানার অভ্যন্তরে ব্যাপক ভাংচুর চালায়। এসময় উত্তেজিত শ্রমিকরা মহাসড়ক অবোরধ ও বিক্ষোভ মিছিল করে। গতকাল বুধবার দুপুরে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

ওই পোশাক কারখানার শ্রমিকরা জানান, উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পিরোজপুর বাসস্টান্ড এলাকায় অবস্থিত বিথী ফ্যাশন নামে একটি তৈরী পোশাক কারখানায় আমরা প্রায় দু’শতাধিক শ্রমিক দীর্ঘদিন যাবত কর্মরত আছি। গত দু’মাসের বকেয়া বেতন ও ঈদ বোনাস চাইতে গেলে মালিক পক্ষের ভারাটে সন্ত্রাসীরা আমাদের উপর হামলা চালায়। এর প্রতিবাদে আমরা মহাসড়কে প্রায় ১ঘন্টা অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করার সময় পুলিশের একটি দল অতর্কিত ভাবে আমাদের উপর হামলা চালায়।
ওই কারখানার শ্রমিক আনিসুর রহমান বলেন, আমাদের দুই মাসের বকেয়া বেতন ও ঈদ বোনাস চাইতে গেলে কারখানার মালিক আমাদেরকে চাকুরীচুত্ব্য করবেন বলে হুমকি দিয়ে মুল ফটকে তালা লাগিয়ে দেয়। করে হঠাৎ করে কারখানা বন্ধ করে দেন। গত দুই মাস আমাদের বেতন ভাতা পরিশোধ করেননি মালিক পক্ষ। তিনি বলেন মাত্র দু’দিন পর ঈদুল আজহা অনুষ্ঠিত হবে। কিন্তু এখনও আমাদের বকেয়া বেতনভাতা ও ঈদ বোনাস দেয়া নিয়ে টালবাহানা করছেন মালিক পক্ষ। তাই বাধ্য হয়ে আমারা আন্দোলনে নামতে বাধ্য হয়েছি।
আহত নারী শ্রমিক মানসুরা আক্তার ও তানিয়া আক্তার বলেন, কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিল্লাল হোসেন তার নিয়োজিত কতিপয় কর্মকর্তাদের দিয়ে আমাদের বিনা কারনে চাকুরীচ্যুত ও দুই মাসের বকেয়া বেতন সহ বিভিন্ন পাওনাদি পরিশোধ না করে তালবাহানা শুরু করে দিয়েছে। আমরা এর ন্যায় বিচার চাই।
জোৎসনা বেগম ও ফাতেমা আক্তার বলেন, কারখানার এমডি বিল্লাল হোসেনের ভারাটে সন্ত্রাসী বাহিনী আমাদের উপর আতর্কিত ভাবে হামলা চালিয়ে পিটিয়ে কমপক্ষে ১৫জনকে আহত করে। আমরা এর ন্যায় বিচার চাই।
আল-আমিন মিয়া ও কবির হোসেন বলেন, আমরা বকেয়া বেতন ও ঈদ বোনাস না পেয়ে রাস্তায় নামতে বাধ্য হয়েছি। কিন্তু পুলিশ আমাদের সহযোগিতা না করে পুলিশের কতিপয় সদস্যরা আমাদের নিরীহ শ্রমিকদের উপর লাঠিপেটা করেন। বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখ জনক।
সামির খান ও বাদশাহ্ মিয়া বলেন, এই কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিল্লাল হোসেন অত্যন্ত খারাপ প্রকৃতির লোক। আমাদের বকেয়া বেতন ও বোনাস না দিয়ে আমাদের উপর দিনের পর দিন স্ট্রিম রুলার চালাচ্ছেন তাদের নিয়োজিত সন্ত্রাসী বাহিনী। আমরা গরীব বলে কোথাও গিয়ে এর ন্যায় বিচার পাইনি।

এবিষয়ে জানতে চাইলে বিথী ফ্যাশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিল্লাল হোসেন বলেন, শ্রমিকদের বকেয়া বেতন ও ঈদ বোনাস  পরিশোধ করা হবে। তিনি বলেন, শ্রমিকরা তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মহাসড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে ও কারখানা গ্লাস ও আসবাবপত্র ভাংচুর করে ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে।
সোনারগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোর্শেদ আলম বলেন, এবিষয়ে বিথী ফ্যাশনের শ্রমিকরা বকেয়া বেতন ও বোনাসের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ করলে পুলিশ তাদের মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দেয়।
সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শাহিনূর ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। ঈদের পূর্বে বকেয়া বেতন ও বোনাস পরিশোধ করার জন্য মালিকপক্ষকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।