সোনারগাঁওয়ে ছাত্রলীগের কার্যালয়ে হামলা প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাংচুর, আহত ১০

0
517

আজকের সোনারগাঁওঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার কাঁচপুর এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ন্ত্রণকে কেন্দ্র করে কাঁচপুরএলাকায় ছাত্রলীগের কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ও এক সাংসদের ছবি ভাংচুর চালিয়েছে স্থানীয় যুবলীগ কমীরা। এ সময় তাদের হামলায় ছাত্রলীগের ১০ নেতাকর্মী আহত হয়। এ বিষয়ে বুধবার দুপুরে সোনারগাঁও থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। স্থানীয় এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, উপজেলার কাঁচপুর ইউনিয়নের ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় গত দেড় বছর আগে কাঁচপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের ৫নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের কার্যালয় নির্মাণ করে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছেন। সম্প্রতি কাঁচপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মাহাবুব পারভেজের সঙ্গে কাঁচপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের ৫নং ওয়ার্ডের সভাপতি নাহিদ মিয়ার ব্যবসায়িক বিরোধ চলে আসছিল। গতকাল মঙ্গলবার দু’জনের মধ্যে বাকবিতন্ডতা হয়। এর জের ধরে মাহাবুব পারভেজ, উপজেলা শ্রমিকলীগের যুগ্ম সম্পাদক ফারুক ওমর, যুবলীগ নেতা সুমন মিয়া, মোখলেছুর রহমান, রাসেদ মিয়া, উজ্জল হোসেন, সুমন মিয়া, বাবুল হোসেনসহ অর্ধশতাধিক লোক একত্রিত হয়ে কাঁচপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের ৫নং ওয়ার্ডের অফিস কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে আসবাবপত্র ব্যাপক ভাংচুর চালায়। এ সময় কার্যালয়ে থাকা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম শামীম ওসমানের ছবি ভাংচুর করা হয়। তাদের হামলায় ছাত্রলীগের ৫নং ওয়ার্ডের সভাপতি নাহিদ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক হৃদয় হোসেন, সহ-সভাপতি সাইফুল ইসলাম, ৪নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি শামীম মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক নিলয় হোসেন, কাঁচপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা হাসান মিয়া, জনি হোসেন, রাব্বি মিয়া, রিপন হোসেন, মেহেদী হাসান সহ কমপক্ষে ১০ জনকে পিটিয়ে আহত করে। পরে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের শত শত নেতা দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়ে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে সমর্থ হয়। সোনারগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ মোরশেদ আলম বলেন, এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। যে কোন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।