হাসনাত ফ্যামেলির পরেই আমাদের অবস্থান আওয়ামী রাজনীতিতে নতুনরা সুদিনের কোকিল -আনোয়ারুল কবির ভূইয়া

0
7310
আজকের সোনারগাঁওঃ সোনারগাঁয়ে আওয়ামী রাজনীতিতে ফাউন্ডার হচ্ছে হাসনাত ফ্যামেলি, আমি শ্রদ্ধা করি মরহুম সাজেদ আলী মোক্তার ,মোবারক সাহেব, আবুল হাসনাত, বর্তমানে কায়সার হাসনাত  আমার ছোট ভাই তাকেও আমি সম্মান করি। হাসনাত ফ্যামেলির পরেই আমাদের পরিবারের অবস্থান রয়েছে সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগে । বাকী যারা আজ আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী তারা নতুন । আমি বলব নতুনরা সুদিনের কোকিল , আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসার পর তাদের আগমন । আমার দাদা প্রথম থেকেই আওয়ামী রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন এবং আমার চাচা মরহুম আব্দুল হাই ভুইয়া হাসনাত ফ্যামেলির সাথে মিলে সোনারগাঁয়ে আওয়ামীলীগকে ধরে রেখেছিল । আমি ব্যক্তিগত ভাবে ৮০ এবং ৮১ সালে তৎকালিন জিয়াউর রহমানের রোষানলে পড়ে নির্যাতিত হয়ে ছিলাম। বাংলাদেশ সরকারের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন মন্ত্রনালয়ের , বিভাগ এবং বিভিন্ন সংস্থায় আমার কর্মদক্ষতা প্রদর্শন করে দেশ ও জাতির সেবায় নিয়োজিত ছিলাম। উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড বাস্তবায়নের বিভিন্ন দিকগুলো আমার জানা আছে। সেই জ্ঞানকে কাজে লাগিয়ে ভিশন ২১ এবং ৪১ বাস্তবায়নে আমি দূরদর্শী বিশ্বনেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমি দেশকে এগিয়ে নেয়ার কাজ করতে চাই ।  নেত্রী আমার যোগ্যতার বিচারে আমাকে নমিনেশন দিয়ে দেশ গড়ার কাজে সম্পৃক্ত থাকার সুযোগ করে দিবেন আশা করি । সোনারগাঁয়ে নৌকার রশি তার হাতেই আসবে প্রত্যয় ব্যক্ত করে আজকের সোনারগাঁও . কমকে এসব কথা বলেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব আনোয়ারুল কবির ভূইয়া। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের স্থপতি ও বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা এবং তার সুযোগ্য কন্যা দেশনেত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ নির্মাণে নিজেকে সম্পৃক্ত রেখে নিজ এলাকা সোনারগাঁয়ের সার্বিক উন্নয়ণে সর্বদা একনিষ্ঠ ভাবে কাজ করে যেতে চাই।  নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁ উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের বশিরগাঁও গ্রামের প্রয়াত আবুল হাসেম ভূইয়ার সুযোগ্য সন্তান তিনি,তিনি জানান তার পিতা তৎকালীন করাচি ইউনিভার্সিটি থেকে মাষ্টার্স ডিগ্রী লাভ করে বিমান বাহিনীতে কর্মরত ছিলেন।বাল্যকাল থেকেই শিক্ষা ক্ষেত্রে তার প্রতিভার স্বাক্ষর রেখে প্রাচ্যের অক্সফোর্ড হিসেবে পরিচিত ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয় থেকে এম কম ফাইনেন্স ও এলএলবি শেষ করে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এক্সচেঞ্জ কমিশনের নির্বাহী পরিচালকের দায়িত্ব পালন সহ বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের প্রকল্পের দায়িত্ব পালন করেন।ছাত্রজীবন থেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে লালন করে ১৯৮০-৮১ সালে নিজ উপজেলা সোনারগাঁ উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক,১৯৮২সালে নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি,ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের তৎকালিন সুলতান রহমান এবং জালাল জাহাঙ্গীরের নেতৃত্বে ছাত্রলীগের বিভিন্ন কর্মকান্ডে অংশ গ্রহণের পাশাপাশি বিএনপি সরকারের আমলে বিএনপি নেতা কর্মীদের দ্বারা বিভিন্ন ভাবে অত্যাচারিত হওয়া ছাড়াও মিথ্যা মামলার শিকার হোন,তাছাড়া তিনি যুদ্ধকালীন সময়ে তার চাচা প্রয়াত আব্দুল হাই ভূইয়ার সাথে মুক্তিযোদ্ধাদের সহযোগিতা করেন।তার চাচা আব্দুল হাই ভূইয়া সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দীর্ঘ দিন সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেছিলেন ।সোনারগাঁয়ের পরিচয় বিশ্ব দরবারে তুলে ধরার জন্য তিনি কাজ করে যাওয়ার  প্রত্যয় ব্যক্ত করেন । বাংলাদেশ সরকারের গুরুত্বপূর্ণ বিভাগে দায়িত্ব পালন করার সুবাদে তিনি সিঙ্গাপুর,কোরিয়া,হংকং,থাইল্যান্ড, ইউএসএ,অষ্ট্রেলিয়া,জাপান,ইন্দোনেশিয়া,কানাডা সহ বিশ্বের অধিকাংশ দেশে ট্রেনিং এবং সেমিনারে অংশ গ্রহণ করেন।তাছাড়া তিনি ঢাকায় অবস্থিত ঢাকা আর্মি গল্ফ ক্লাবের একজন সদস্য এবং ঢাকা অফিসার্স ক্লাবের ও একজন সদস্য।তিনি জানান তার  স্ত্রী রোকসানা আক্তার সম্ভ্রান্ত পরিবারের  একজন উচ্চ শিক্ষিত এম এ পাশ করা সন্তান ,তার বড় ছেলে হাসিব আনোয়ার অষ্ট্রেলিয়ার সিডনি ইউনিভার্সিটি থেকে স্কলারশিপ নিয়ে ফাইনেন্সে মাষ্টার্স শেষ করে ২০১৫তে সাড়া পৃথিবীতে গোল্ড মেডেলধারী ৩জনের মধ্যে একমাত্র বাঙ্গালী হিসেবে এ কৃতিত্ব অর্জন করেন,তার কন্যা তাসনিম সাম্স বাংলাদেশ আর্মি ইউনিভার্সিটিতে ইন্জিনিয়ারিং এ অধ্যয়নরত,তার ছোট ছেলে বাংলাদেশ আর্মি ইন্টার ন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজে অধ্যয়নরত, ছেলের সহধরমীনি রিহান বিল্লা জ্যোতি ইউকে থেকে আইন শাস্ত্রে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করেন। সোনারগাঁ বাসীর উন্নয়ণে নিজেকে নিয়োজিত রাখতে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নৌকার প্রার্থী হয়ে নারায়ণগঞ্জ -০৩  সোনারগাঁ আসনে মনোনয়ন  প্রত্যাশী এই অর্থনীতিবিদ ও রাজনৈতিক ব্যত্তিত্ব  আনোয়ারুল কবির।