আমি যে সব কারনে সোনারগাঁ আসনের যোগ্য মনোনয়ন প্রত্যাশী … জসিম উদ্দিন আহম্মেদ চৌধুরী

0
949

মেহেরুন নেছাঃ জসিম উদ্দিন আহম্মেদ চৌধুরী , আসন্ন জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বচনে নারায়ণগঞ্জ-৩ সোনারগাঁ আসনে মনোনয়ন প্রার্থী হিসাবে নিজেকে কি কি কারনে যোগ্য মনে করছেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি একজন দক্ষ সংগঠক,কর্মী বান্ধব জনপ্রিয় নেতা । আপাদমস্তক বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক । ৮০ এর দশকে এরশাদ বিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে ৯১-৯৬ বিএনপি আমলের সরকার বিরোধী আন্দোলনে,২০০১ এর পর চারদলীয় জোটের তান্ডবের বিরোদ্ধে রাজপথের সাহসী সৈনিক,বিভিন্ন সময়ে রাজনৈতিক হামলা,মামলার শিকার জসিম উদ্দিন আহম্মেদ চৌধুরী কখনো বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকে বিচ্যুত হয়নি । বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে দলীয় নেতৃত্বের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে রাজনৈতিক পথে পথ চলেছেন। এখনও সেই পথে অটুট রয়েছেন ।

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি নারায়ণগঞ্জ-৩ সোনারগাঁ আসন থেকে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার আশা পোষন করেন। তিনি তৃনমূলে কাজ করে চলেছেন। ২১ শে আগষ্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে গ্রেনেড হামলায় আহত হন জসিমউদ্দিন আহম্মেদ চৌধুরী একাধীকবার বিএনপি জামাতের রোষানলে পরে তাদের লাঠির আগাতে আহত হয়েছিলেন । একজন ত্যাগি নিঃস্বার্থ দলীয় কর্মী হিসাবে তিনি তার কর্মতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন । তিনি আশা করেন নেত্রী যদি তাকে উক্ত আসনে মনোনয়ন দেন তবে তিনি অত্র এলাকা থেকে নির্বাচিত হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরও শক্তিশালী করার প্রত্যয়ে কাজ করে যাবেন।

অতীতের সামাজিক কর্মকান্ড ও রাজনৈতিক পরিচিতি ঃ ২৮-০২-২০১৬ ইং হইতে বাংলাদেশ তাঁতীলীগের ঢাকা বিভাগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন,০৭-১২-২০১৬ সালে বাংলাদেশ তাঁতীলীগের নারায়ণগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করিতেছেন ।

২৪-১০-১৬ ইং বাংলাদেশ তাঁতীলীগের নারায়ণগঞ্জ জেলার কার্যকরী সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।০১.০৯.২০১৬ তারিখে গঠিত বাংলাদেশ তাঁতীলীগের নারায়ণগঞ্জ জেলার যুগ্ন আহ্বায়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।১৯.০৩.২০১৭ ইং বাংলাদেশ তাঁতীলীগের সম্মেলন সফল ও সার্থক করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ তাঁতীলীগের নারায়ণগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক হিসাবে জেলা শাখার কাউন্সিলর ভলেনটিয়ার এবং ডেলিগেটদের নিয়ে উপস্থিত ছিলেন ।

২১ শে আগষ্টের সমাবেশে আবু হেনা মোস্তফা কামাল সাধারণ সম্পাদক আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ (ঢাকা সাবেক ৭৫ নং ওয়ার্ড বর্তমান ৩৯ নং ওয়ার্ড ওয়ারী থানা)ও সারোয়ার উদ্দিন মিঠু সভাপতি সুত্রপুর থানা ও সহ সভাপতি ঢাকা মহানগর দক্ষিন আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতৃত্বে অংশগ্রহন করে গ্রেনেড হামলায় আহত হয়েছিলেন।সর্বোপুরি নিজের সর্বাত্বক চেষ্টা ও মনোনিবেশের মাধ্যমে তিনি দায়িত্বপ্রাপ্ত হিসাবে দলীয় যে কোন কর্মকান্ডে আর্থের দিকে না তাকিয়ে স্বচেষ্টায় এবং নিজ বলে দায়িত্ব পালনের চেষ্টা করেন ।

 

২৭ মার্চ ২০১৫ ইং সালে গঠিত বঙ্গবন্ধু পেশাজীবি পরিষদের নারায়ণগঞ্জ মহানগরের সভাপতি হিসাবে হিসাবে দায়িত্ব পাল করেন । ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৪ সালে বঙ্গবন্ধু পেশাজীবি পরিষদের নারায়ণগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।
৪ নভেম্বর ২০১৬ সালে ধানমন্ডির আওয়ামীলীগ কায়ালয়ে বর্তমান সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসাবে নির্বাচিত হওয়ার পর তাঁর নেতৃত্বে জাতীয় ডিজিটাল সড়ক পরিবহন শ্রমিকলীগ ( রেজিঃ বি ১৭৭৬ জাতীয় শ্রমিক লীগের অর্ন্তভুক্ত) এর পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান তিনি ।

২০০৭ সালের ১/১১ চলাকালিন সময়ে লাঙ্গলবন্ধ,দড়িকান্দি,সোনারগাঁও এলাকায় সাংগঠনিক দায়িত্ব পাল করতে গিয়ে জামায়ত বিএনপির সন্ত্রাসী লাঠিয়াল বাহিনী তাদের দড়িকান্দি রাস্তার উপর ফেলে হকিস্টিক, লাঠি গজারী এবং রাম দা দিয়ে এলোপাথারি কুপিয়ে তার ডান পা কাটা জখম করে ভেঙ্গে ফেলে , তার বুকের উপর পা দিয়ে সন্ত্রাসীরা রাস্তায় ফেলে রেখে যায় ।

সে সময় আরোও নির্যাতিত হন বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব রশিদ মোল্লা সহ অনেকে ।২০০৬ সালে অক্টোবরে খালেদা হটাও অসহযোগ আন্দোলনের সময় কাঁপুর সোনারগাঁয়ে অঅবরোধ কর্মসূচিতে সক্রিয় ভাবে দায়িত্ব পালন করেন তিনি । এসময় উপস্তিত ছিলেন কে এম শফিউল্লাহ,সাবেক এমপি নারায়ণগঞ্জ -৩ সোনারগাঁ আসনের এমপি আবদুল্লাহ আল কায়সার হাসনাত ।৩১.০৭.২০০৬ সালে গঠিত আওয়ামী স্বেচ্ছা সেবক লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন ( ইঞ্জিঃ ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে ) অনুষ্ঠিত হয় ।

উক্ত সম্মে,লনে কাউন্সিলর হিসাবে উপস্থিত হয়ে ২৪.০৬.২০০৯ সালে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রিয় সম্মেলনে ননগভঃমেন্টঅফিসার স্পেসাল ব্রাঞ্চ বাংলাদেশ পুলিশ হিসাবে ভলেনটিয়ারের দায়িত্ব পালন করেন বলে তিনি জানান । ১৯৮৬ সালে ঢাকা ( সাবেক ২৮ নং বর্তমান ৫ নং ওয়ার্ড সবুজবাগ থানায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগের যুগ্ন আহ্বায়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে ১৯৮৯ সালে সবুজবাগ থেকে জগন্নাথ হল নয়াবাজার ও রায় সাহেব বাজার এলাকায় স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে অংশগ্রহন করেন ।

১৯৯১ সাল থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত মান্ডা ইউনিয়নে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ন আহ্বায়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৩ সাল থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত সাবেক ৭৫ নং ওয়ার্ড সুত্রাপুর থানা বর্তমান ৩৯ নং ওয়ার্ডে আওয়ামী সে¦চ্ছাসেবক লীগের সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন । ০২.০৮.২০০৭ ইং সালে ঢাকায় আওয়ামী সে¦চ্ছাসেবক লীগের ঢাকা ইউনিয়ন কমিশনের সম্মুখে জননেত্রী শেখ হাসিনার মুক্তির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিলে অংশ গ্রহন করেন।

চলবে …..