সাংবাদিক পরিবারের ১৩ সদস্যকে আসামী করে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী

0
158

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের রতনপুরে এলাকায় সাংবাদিক এসএম মনির হোসেন ও কাঁচপুর ইউনিয়ন পরিষদের সচিব ও বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সেক্রেটারী সমিতি (বাপসা) সাধারণ সম্পাদক মো. দেলোয়ার হোসেনসহ তার পরিবারের ১৩ সদস্যকে আসামী করে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

কাঁচপুর ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মো. দেলোয়ার হোসেন জানান, গত ১৩ ফেব্রুয়ারি উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের রতনপুর এলাকার কালামের ছেলে সাইফুল (২৪) ও রিমন (২২) এর নেতৃত্বে ১০-১২জন সন্ত্রাসী মিলে গ্রাম্য বিনোদনের খোঁড়াক নাচ-গানের নামে চাঁদা দাবি করেন। সন্ত্রাসীদের দাবিকৃত টাকা না দেয়ায় গত ১৫ ফেব্রুয়ারি সকালে বাড়ির পাশে হাটতে গেলে আগে থেকে উৎপেতে থাকা একদল সন্ত্রাসীরা প্রথমে কাঁচপুর ইউপি সচিব ও বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সেক্রেটারী সমিতি (বাপসা) সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেনকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করে। এসময় তার ডাক চিৎকারে তাকে উদ্ধার করতে গেলে তার ভাগিনা আহসান মোল্লা (৪৫), ভাতিজা রাব্বি (২৪), ভাই-ইউনুস আলী (৩৮), ভাই-শাহ আলী (৪২), ছেলে-ইমন (২৩), বোন- জয়নব নেছা (৬০) ও ভাগিনা ফাহিমসহ (১৮) একই পরিববারের ৭জনকে দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে মারাত্মভাবে আহত করে। এঘটনায় গত ১৭ ফেব্রুয়ারি ইউপি সচিব দেলোয়ার হোসেন বাদি হয়ে সোনারগাঁও থানায় একটি চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করে।
কাঁচপুর ইউপি সচিব ও বাংলাদেশ ইউনিয়ন পরিষদ সেক্রেটারী সমিতি (বাপসা) সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন আরো জানান, সন্ত্রাসী সাইফুল ও রিমন স্থানীয় একটি প্রভাবশালী সন্ত্রাসী বাহিনীর শেল্টারে গত শুক্রবার রাতে আমার ছোট ভাই দৈনিক সবুজ নিশান পত্রিকার নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি সাংবাদিক এস এম মনির হোসেনসহ আমাদের পরিবারের ১৩ জনকে আসামী করে সন্ত্রাসী সাইফুলের ফুফাতো ভাই মামুন বাদি হয়ে একটি মিথ্যা মামলা সোনারগাঁও থানায় দায়ের হয়রানী করে আসছে।
এ ব্যাপারে সোনারগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মনিরুজ্জামান থানায় মামলা রুজুর বিষয়ে নিশ্চিত করে বলেন,
তদন্ত পূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।