সোনারগাঁয়ে মুক্তিযোদ্ধাকে লাঞ্ছিত করায় আল মামুনের বিরুদ্ধে বিভাগীয় কমিশনারে অভিযোগ

0
169

আজকের সোনারগাঁওঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলা ভূমি কার্যালয়ে মো. জামান মোল্লা (৬৭) নামে এক মুক্তিযোদ্ধাকে লাঞ্ছিত করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় গত রোববার ভুক্তভোগী মুক্তিযোদ্ধা মো. জামান মোল্লা এর প্রতিকার চেয়ে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. জামান মোল্লা তার অভিযোগে উল্লেখ করেন, ’এক ইঞ্চি জমিও যাতে অনাবাদি না থাকে’ প্রধানমন্ত্রীর এই ঘোষণা অনুসারে চাষাবাদের জন্য তার জমির পাশে একটি অনাবাদি ও অকৃষি জমির বন্দোবস্ত চান। র্দীঘ ৬ মাস অধিক সময় ধরে ওই আবদেনটি সোনারগাঁও সহকারী কমিশনার (ভূমি ) কার্যালয়ে পরে থাকে।

এ ব্যাপারে গত ১৬ জুলাই খোঁজ নিতে সোনারগাঁও উপজেলা ভূমি কার্যালয়ে যান মুক্তিযোদ্ধা মো. জামান মোল্লা। এ সময় ভূমি কার্যালয়ের সার্ভেয়ারের সহযোগী হিসেবে কর্মরত উমেদার মো. সোহাগ কাজ করিয়ে দেয়ার কথা বলে তার কাছে ১ লাখ টাকা ঘুষ দাবি করেন৷ এ সময় মুক্তিযোদ্ধা মো. জামান মোল্লা ঘুষ অনিয়মের ব্যাপারে প্রতিবাদ করে।

পরে পাশের কামরায় অবস্থানরত সোনারগাঁও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি ) আল মামুনের কাছে গিয়ে ঘুষ অনিয়মের ব্যাপারে অবহিত করে উমেদার মো. সোহাগের বিচার দাবি করেন। এতে সহকারী কমিশনার (ভূমি ) আল মামুন তার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে লাঞ্ছিত করে বের করে দেন। তিনি আরো জানান, সার্ভেয়ার বন্দোবস্ত চাওয়া জমি সরেজমিনে দুইবার পরিদর্শন করে তার পক্ষে মতামত দিলেও উমেদার মো. সোহাগ এবং এসিল্যান্ড আল মামুন উভয়ে যোগশাজসে ঘুষ নেয়ার জন্য তাকে হয়রানি করে আসছে।

এ ব্যাপারে এসিল্যান্ড আল মামুনের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, বিষয়টি সার্ভেয়ার পর পর দুইবার পরিদর্শন করে নাল জমি হিসেবে রিপোর্ট দিলে আমি নাল জমি হিসেবে বন্দোবস্ত দেয়া যেতে পারে সুপারিশ করে ফাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে পাঠিয়েছি। ঘুষ চাওয়ার বিষয়টি আমার জানা নাই এবং মুক্তিযোদ্ধা মো. জামান মোল্লাকে কোন প্রকার লাঞ্ছিত করা হয়নি।